উপহার

উপহার

রনি আজ অফিসে কাজে কোন মন নেই,, আর থাকবেই বা কি করে,, কোনো রকমে অফিসে দায় সারা আজকের মতোন কাজ মিটিয়ে বাড়ি ফিরে এসেছে,, ব্যাগটা রেখে সোজা একটি ফটো সামনে এসে দাড়িয়ে ছে,,

আমারা কিছু বছর আগে ফিরে আসি,,,

অনিতা দেবী: উঠ মা কতো বেলা হয়ে আসলো,, কিছু খেয়ে নিবি চল,,

অনু: হ্যাঁ মা উঠছি বলে নিচে চলে আসলো,,

রমেন বাবু: মা দেখতো তোর এটা পছন্দ হয় কিনা,, একটি হাড় ছবি বাড় করে,,

রমেন বাবু ও অনিতা দেবী একটি মাত্র সন্তান অনু,, ছোটবেলা থেকেই খুব আদরে মানুষ হয়েছে,, আর নিজের মেয়েকে সব থেকে best ‘উপহার’ দিয়ে এসেছে,, তাই মেয়ে পছন্দের করা ছেলেকে তার নিজেদের মেয়েকে তুলে দিয়েছে তারই,, বাজার করতে ব্যাস্ত,,

অনু: ছবিটি দেখে খুব খুশি হয়ে বাবা কে জরিয়ে ধরে,, তার পর তৈরি হয়ে বসে আছে ,, রনি জন্য হঠাৎ ফোনের আওয়াজ স্কিনে রনি নাম ভেঁসে উঠলো,,

রনি: তুমি তৈরি তো আজকে বিয়ে কিছু shopping করবার জন্য তোমাকে তৈরি হতে বলেছিলাম,, তুমি তৈরি তো,,??

অনু: হ্যাঁ,, তুমি আসো,, এই বলে রনি সঙ্গে তাদের বিয়ে Shopping সেরে বাড়ি ফিরে এলো,,

দেখতে দেখতে তাদের বিয়ে দিন চলে এলো,, বিয়ে সেরে তারা এক নতুন বাড়িতে উঠলো,, রনি মা বাবা কেউ না থাকাই ঘরোয়া ভাবে বিয়ে যাবতীয় অনুষ্ঠান হল,,,

রনি আর অনু জোরাকে কে দেখে প্রথম প্রথম সবাই Mate For Each other বলে সম্বোধন করতো,, তাদের এতো মিল দেখে,,

এইভাবে দেখতে দেখতে বছর খানেক সময় কেটে গেল,, কিন্তু বেশ কয়েকটি দিন ধরে রনি ব্যবহার ঠিক ভালো লাগছে না,,

অনু: তৈরি হয়ে বসে আছে তবুও রনি কোন খেয়াল নেই,, আর না পেরে এবার রনি কে একটা ফোন করলো,, কয়েক বাড় রিং হল তবে তুললো না ফোনের ওপাশ থেকে,, আবারও একবার ফোন করলো,, তবে কিছু ক্ষণ পরে ফোন তুললো,,

রনি: বলো কাজের সময় কেন ফোন করেছো??

অনু: আজ তো আমাদের বাইরে Dinner এর যাওয়ার কথা ছিল,, তুমি আমার birthday উপলক্ষে একটি ‘উপহার’ হিসেবে।

রনি: বিরক্তিকর কন্ঠে,, ওওওও হ্যাঁ,, তবে sorry আজ Office কাজের খুব চাপ আজ হবে না।

অনু: কিছু একটা বলতে যাবে তখনই এই বলে ফোন রেখে দিল,, অনু আর কিছু না বলে খেয়ে নিজের মতো শুয়ে পড়লো,,আর রনি office থাকে বাড়ি ফিরে এসে শুয়ে পড়লো অনু সাথে একটা কথা না বলে,,অনু মনে মনে খুব কষ্ট পেল,,সে তার birthday তে তেমন কিছু চাইনি শুধু একটু তার প্রিয় মানুষের সঙ্গে সময় কাটাতে চেয়ে ছিল,, বা ভালোবেসে ‘উপহার’ হিসাবে একটি গোলাপ ফুল চেয়ে ছিল,,

এইভাবে আর কিছু মাস কেটে গেল যতো দিন যাছে রনি অনি সঙ্গে অনেক কথা কমিয়ে দিয়েছে,, আর আগের মতো সময় বাড় করে ঘুরতে নিয়ে যায়না এই নিয়ে অনু ও রনি মধ্যে অনেক অস্তান্তি ও হয়েছে,, তাও কোনো কাজ হয়নি,,

এখন আর সেই আগে রনি নেই অনু সাথে নাকি কথা বলতে ভালো লাগে না তার আর,, অনু তো এই সব কিছু কখনো আশা করেনি তবে কেন এসব কিছু ঘটছে,, তবে সত্যি ই কি অনু আর অনি জীবনে কারোর নজর লেগে গেল?? অনু তো এসব কিছু চাইনি সে জীবনে শুধু তার ভালো মানুষের একটু সময় আর বেলা শেষ একটি গোলাপ তার ভালোবাসা মানুষের ‘উপহার হিসেবে চেয়ে ছিল। কিছু দিন যায় অনি খুব অসুস্থ হয়ে পড়ে,, তবে এদিকে রনি কোনো বিন্দু মাএ খেয়াল নেই। একদিন একটি অজানা ঝড়ে সব শেষ হয়ে গেল, অনি তার ৪মাসের গভজাত শিশু টিকে নিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি দিল,,

রনি বুঝলো তবে তার দেরি হয়ে গেল,, সে যদি আর একটু আগে বুঝত তবে এমন ক্ষতি হয়তো তার জীবনে আসতো না।কথায় আছে না কাছে থাকতে কোনো জিনিসের মূলায়ণ করি না এই গল্পটি ক্ষেত্রে ঠিক তাই ঘটল। এইভাবে কেটে গেল আরও দুটি বছর,, তবে রনি এখান তার ভুলের জন্য মাসুল গুনে চলছে,, তবে এখন কিছু পরিবর্তন তার জীবনে ঘটেছে,, এখানে ঠিক সময় office থেকে বাড়ি ফিরে অনু ফটো সঙ্গে সময় কাটায় আর বাড়ি ফিরে আসবার সময় হাতে একটি গোলাপ ফুল ‘উপহার ‘ হিসেবে নিয়ে আসে।

আজ তার বিপরীত কিছু হল তবে আজকের দিনে অনু না ফেরার পথে পাড়ি দেয়,, অফিস থেকে বাড়ি ফিরে bag রেখে অনু ফোটো তে গোলাপ রেখে,, তার সামনে দাঁড়িয়ে তাদের ফেলে আসা স্মৃতি টুকু নিয়ে ভাবছে।। এইতো ‘উপহার’ যা অনু তার ভালোবাসার মানুষের কাছে প্রাপ্তি ছিল।।

গল্পের বিষয়:
গল্প
loading...

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত