মানুষ

মানুষ

এলাকার সবচেয়ে সুন্দর মেয়ে নিশাত, প্রেম পড়ছে, এই এলাকার সবচেয়ে বাজে ছেলে নামে খ্যাতো অভির প্রেমে.!এই নিয়ে কলেজে মিটিং চলছিলো সবার মুখে একটাই কথা এই বিষয় কেউ মানতে পাড়ছে না.!আমিও কলেজে এসে প্রথমে এই নিউজটা সুনে চমকে যাই.!নিশাত ও অভি দুজনেই আমাদের সিনিয়র অথচ এই বিষয় নিয়া এলাকার বড় ছোট সবার মধ্যে একটা মিটিং চলছে.!তাছাড়া কিছু কিছু বড় ভাইয়েরা বলছে এই বাজে ছেলে নামে খ্যাতো অভি ভাইকে এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেবে.!

আবার কিছু কিছু ভাইয়েরা বলছে নিশাত পাগল হইয়া পাগলের সাথে প্রেম করে.!আবার কিছু ছোট ভাইয়েরা তাদের উৎসাহ দেয় তাকে যেন এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেয়.!আমি এদের কারো কথা বিশ্বাস নাকরে নিশাত আপুকে খুজতে লাগলাম তার কাছ থেকে সত্যটা জানার জন্য.!অথচ আজ নিশাত আপু কলেজে আসে নি.! নিশাত আপু কলেজে ইন্টার দ্বিতীর বর্ষের ছাএী, আর আমি প্রথম বর্ষের ছাএ.!অভি ভাইও সেই ক্লাসে পড়ে নিশাত আপুর সাথে.!খুজতে খুজতে সব জায়গা খোজা শেষ তারপরে নিশাত আপুকে পাইনি.!

আজ দুইদিন পর নিশাত আপু কলেজে আসছে.!দূর থেকে তাকে দেখা যাচ্ছে.!নিশাত আপু আমার কেউ না তারপরো দুজনের ভালোবাসা ভাই বোনের থেকে কম না!আপু আমাকে সব সত্যি কথা বলবেই কারন আপুর ভাই নেই আমারো বোন নেই তাই আমরা ভাই বোন!এই নিয়েও এলাকায় অনেক কানা ফুসি চলে.! কিন্তু আমরা কারো কথায় কান দেই না.! আমরা আমার মতো.!নিশাত আপু আর আমার পরিচয়টা হয়েছিলো ইব্রাহিম স্যরের বাসায় বসে.!নিশাত আপু এসএসসি তে গোল্ডেন পেয়েছিলো এমনকি থানা ফাস্ট হয়েছিলো.!আমি এসএসি তে শুধু এ+ পেয়েছিলাম এসএসসি পরিক্ষার পর স্যারের কাছে পড়তে গিয়ে তখন তার সাথে পরিচয়.!আমাদের এলাকার শিক্ষার আইডল হিসেবে সব শিক্ষকরা তাকে মানতে বলে.!বলবেইনা কেন তার যেমনি চেহারা সুন্দর, তেমনি লেখাপড়ায় ভালো,তার ফ্যামিলি অনেক উচ্চ পর্যায়ে.!

নিশাতঃএই মেহেদী,এই মেহেদী.(ও আপনাদের বলা হয়নি আমার নাম মেহেদী)

আমিঃজি,আপু.!

নিশাতঃতুই এত কি ভাবিস যে এত ডাকি শোনো না.!

আমিঃতোমার সাথে কথা আছে,,

নিশাতঃকি বলবি আমি তা জানি,,

আমিঃআপু তাহলে সত্যি.!

নিশাতঃহুমমম সত্যি.!!

আমিঃছিঃ ছিঃ শেষ পর্যন্ত একটা নেশাখোর ছেলের সাথে তুমি রিলেশন করো.!

নিশাত আপুঃআচ্ছা একটা মানুষ নেশা করলে কি খারাপ হয়ে যায়..??? একটা মানুষ চুল বড় রাখলেই কি খারাপ হয়ে যায়..??

আমিঃঅবশ্যই। আর কোথায় তুমি আর কোথায় ও.!

নিশাত আপুঃআমি ওর যোগ্য না.!

আমিঃএটা হাস্যকর.!তারপরো বলো কেমনে..???

নিশাত আপুঃও নেশা করে মানছি ও খারাপ মানছি.!আমরা সবাই ওর খরাপ চেহারা দেখেছি কখনোও ওর মনটা দেখিনি.!তোর আমার কাছে ও খারাপ কিন্তু ওই বস্তিতে চল দেখবি ওর থেকে ভালো ছেলে আর কেউ নেই.!সবাই ওকে ভালো জানে.!ও আমাদের কলেজে নিয়মিত আসে না রাস্তায় পড়ে থাকে.!ও দিনে কাজ করে দৈনিক ৫_৬ টা ছেলে মেয়ের লাখাপড়ার খরচ দেয়.!ও এরকম রাস্তায় সুয়ে থাকে পাগলের মত করে যাতে আমার মত মেয়েরা ধর্ষিত না হতে পারে.! তাহলে শোন সেদিন সনধ্যার পর আমি আর নিলা ওই রাস্তা দিয়ে আসছিলাম তখন এই এলাকার কিছু ছেলেরা আমাকে টর্চার করছিলো ভাগ্য সেদিন সহায় ছিলো তাই সেদিন ও বাচিয়েছিলো.!

বিশ্বাস কর আমিও ওকে খুব ঘৃন্না করতাম সেদিনের পর ওর খোজ খবর নিয়ে জানতে পারি ওকে ওই বস্তির প্রত্যেকটা মানুষ নিজের ছেলে মনে করে.!ও ওর নিজের মত করে মানুষকে সাহায্যে করে তুই আমি এত বড় হয়ে এত লেখাপড়া করে কি করতে পারছি..??ও যা পেড়েছে.!আমরা সবাই বহুরূপী মানুষ কেউ উপরে ভদ্রলোক নিচের মন মানুষিকতা জানোয়ারের মতো.!অথচ ওর বাহ্যিক রূপ যতটা ভয়ংকর তার থেকে ওর ভিতরের রূপ কতটা ভালো তুই বিবেচনা কর..!আমরা কে ভালো সবাই তো সার্থপর কেউ কারো ভালো চায় না অথচ ও সবার জন্য নিজেকে কিরকম উৎসর্গ করছে.! আমার চোখে পানি এসে গেলো একটা মানুষের ত্যাগের কথা সুনে.!আপু আমায় মাফ করে দেয়.!

নিশাত আপুঃ ওকে.।আমি তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি এই পাগলটার পাশে থেকে চির জিবন মানুষের সেবা করে যাবো.!

আমিঃভাই হিসেবে আমাকেও পাশে নিস আপু.!!তুই পারফেক্ট একটা মানুষ পয়েছিস আপু.!

নিশাত আপুঃওকে।

বিদ্রঃআমরা মানুষের বাহ্রিক রূপ দেখে মানুষকে বিবেচনা করি.!সাহায্য করলে সার্থের জন্য করছে,না করলে বেইমান মানুষত্ব নেই.!অথচ এরকম অনেক মানুষ আছে যারা বিনা সার্থে মানুষের সেবা করে.!অথচ দিনশেষে তাকে আনরাই খারাপ বলি.!আমরা মানুষ কি একেবারে নিখুত.!সবারই দোষএুটি আছে.!সামান্য দোষে একটা ভালো মানুষকে খারাপ বানতে এক মূহূর্ত্ব চিন্তা করি না.! আমারা সবাই মনে রাখবো দিন শেষে আমরা সবাই মানুষ.!

গল্পের বিষয়:
গল্প

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত