ফেসবুক

বেশ কিছু দিন আগের কথা, সবেমাত্র এস.এস.সি পরীক্ষা শেষ হয়েছে। হাতে এখন প্রচুর সময়। কি করবো এই সময় গুলো সেটা ভেবেই সময় নষ্ট হচ্ছে! কিন্তু কিছু করা হয়ে উঠছে না। তবে এরই মধ্যে বিরক্ত লাগতে শুরু করেছে কেননা সারাদিন টিভি দেখা, শুয়ে থাকা আর খাওয়া দাওয়া তো প্রতিদিনই হচ্ছে, জীবন এখন নতুন কিছুর স্বাদ চাচ্ছে। বাবার কাছে মোবাইল কিনি চাচ্ছি সেটাও দিচ্ছে না তবে বলছেন তার পুরনো মেবাইল টা আমাকে দিবেন। আমি বললাম তাই হোক পুরাতনটাই দেও তাহলে!

মোবাইল পেয়ে আমি মহাখুশি কেননা সময় নষ্ট করার জন্য অস্থির জিনিস আমার হাতে চলে এসেছে। শুধু মোবাইল থাকলে চলবে না, আমার একটা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট চাই তা না হলে সময় নষ্ট করবো কিভাবে? খুলে ফেললাম একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট। যে সামনে আসছে তাদেরকেই ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট দেওয়া শুরু করলাম। ওয়াহ্! এখন যে কোন দিক দিয়ে সময় চলে যায় বুঝতেই পারি না।

ফেসবুকে একটা মেয়ের সাথে সব সময় কথা হয়, মেয়েটির নাম সাদিয়া রহমান। মেয়েটির প্রোফাইলে পুতুলের ছবি দেওয়া।  সারাক্ষণ তার সাথেই কথা হত, আর বিপরীত লিঙ্গের হওয়ার কারণে বয়সের দোষে তার দিকে আকর্ষণ বেশিই ছিল। তবে অবাক করার বিষয় ছিল আমি কি খেতাম কি করতাম সব আমি বলার আগে আইডিয়া করে সব বলে দিতো। আর আমি তার প্রশংসা করে বলতাম বাহ্ আপনার আইডিয়া তো অনেক ভালো। কিন্তু তখনো বুঝি নি এটা ফেইক আইডি। আমার তো সময় বেশ কাটছিলো তাই ওতো মাথা ঘামাই নি। তবে একদিন ছোট ভাইয়া মান-সম্মান সব শেষ করে দিল। তখন মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়লো আমার! ফেইক আইডি যে ছোট ভাইয়া ছিল তখন একদম পরিষ্কার। আমি লজ্জায় লাল হয়ে গেলাম আর মনে মনে ভাবলাম কখনো অপরিচিত আইডির সাথে কথা বলবো না। আমার যা শিক্ষা হওয়ার হয়ে গেছে। তাও ভালো যে বাসার মাঝেই লজ্জায় ডুবে গেছি অন্য কেউ হলে তো ভাইরাল করে দিতো! সময় যখন খারাপ যায় তখন কত কি যে হবে।

গল্পের বিষয়:
ছোট গল্প

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত