বন্ধু দিবসের গল্প

বন্ধু দিবসের গল্প

সবাই বলছে আজ বন্ধু দিবস। ফেসবুকের আনাচে কানাচে
সবাই সবার বন্ধুকে নানা ভাবে শুভেচ্ছা বিনিময় করছে।
এই একটা দিনেই কি বন্ধুর জন্য ভালোবাসা উতলিয়ে
ওঠে। সারা বছর কি তাহলে বন্ধুকে শত্রু মনে করা হয় ।
.
বন্ধুকে ভালোবাসার জন্য বা বন্ধুকে ভালোবাসা প্রকাশ
করার জন্য বিশেষ কোনো দিনের প্রয়োজন নেই। ৩৬৫
দিনে ১ বছর হয়। এই ৩৬৫ দিনের সব দিন গুলোতেই বন্ধুকে
ভালোবাসা যায়। বর্তমানের বন্ধুত্ত গুলো ‘অর্থ এবং
মিথ্যা’ কথার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। যে মানুষটা যত সুন্দর করে
সাজিয়ে গুছিয়ে মিথ্যা বলতে পারে! সেই মানুষটার বন্ধুর
অভাব হয় না। অন্য দিকে এক শ্রেণির মানুষের ব্যাপক
অর্থকড়ি আছে! তাদের বন্ধুর অভাব হয় না।
.
মূলকথা হলো প্রয়োজন ব্যতীত কেউ কারো সাথে বন্ধুত্ত
করতে চায় না। ছেলে ও মেয়ের মাঝে কত দুষ্টুমিষ্টি
বন্ধুত্ত! সারা দিন খুনসুটি ঝরগা অবশেষে মিষ্টি হেসে
আবার বলা কিরে বাদর কেমন আছিস। এই দুষ্টুমিষ্টি
সম্পর্ক করা ছেলে মেয়ে গুলো মনে হয় হাজার বছরের
পরিচিত। শত জনমের যেনো তাদের চেনা জানা। কিন্তু
এই সম্পর্ক গুলোর বেশির ভাগ শেষ পরিনতি করুন ভাবে।
মেয়েটার যখন বিয়ে ঠিক হয় তখন ছেলে ফিল করে সে
মেয়েটাকে মনের অজান্তে ভালোবেসে ফেলেছে।
যেভাবেই হোক মেয়েটাকে বলতে হবে আমি তাকে
ভালোবাসি । কিন্তু শেষ পর্যন্ত মেয়েটার বিয়ে
আটকানো গেলো না। মেয়েটা এখন স্বামী সংসার নিয়ে
ব্যস্ত অন্য দিকে ছেলেটা এখনো বেকার। রাত যত গভীর
হয় ছেলেটার হৃদয় চাপা কষ্ট তত বাড়তে থাকে। কষ্ট সহ্য
করতে না পেরে ছেলেটা আজ সিগারেট খেতে শুরু
করেছে।
.
মেয়েটা স্বামী সংসার নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও মাঝে
মাঝে মধ্যরাতে হঠ্যাৎ ডুকরে কেঁদে ওঠে। মেয়েটাও
ফিল করে সেই ছেলেটার সাথে কাটানো সময় গুলো।
কিন্তু সমাজের বেড়া জালে মেয়েটা আজ বন্দি।
চাইলেও ছেলেটার সাথে খোলামেলা ভাবে কথা বলা
হয়ে ওঠে না। দেখা হলেও বলতে পারে না ‘কিরে বাদর
কেমন আছিস। ছেলেটাও রাগে দুঃখে মেয়েটার সাথে
কথা বলে না।
.
আমি মতে প্রেম, ভালোবাসা, বন্ধুত্ত বলে কিছু নেই।
আপনার আপনাকে নিয়ে সবার এত কদর। আপনি যখন খুব
বিপদে পরবেন সেদিন চিনতে পারবেন কে শত্রু কে বন্ধু।
সত্যি কারের বন্ধু সমাজে খুজে পাওয়া খুব কঠিন। কাছের
কোনো বন্ধুকে অকারনে গালে চড় মেরে দেখেছেন
কোনো দিন। চড় মারলেই বুঝতে পারবেন তার মনের
অজানা অনুভূতি। কখনো দিনের পর দিন প্রিয় মানুষ টাকে
অবহেলা করে দেখেছেন। দেখেননি তো! প্রিয় মানুষ টাও
একটা সময় চেন্জ হয়ে যাবে। আপনাকে আর অকারনে
ফোন দিয়ে বলবে না, ‘কেমন আছো জান? সময়ের সাথে
সেও খুজে নিবে নতুন কোনো মানুষকে। আপনি তখন
থাকবেন তার মনের ব্লাকলিষ্টে। অবহেলা নিদারুণ এক
কষ্টের নাম। যা একবার কেউ পেলে তার মন পাথর হয়ে
যায়।
.
পথে মাঝে গড়ে ওঠা সব সম্পর্ক গুলোকে সিরিয়াসলি
নিবেন না। আপনার ছোট্ট একটি ভুল! হতে পারে আপনার
জীবন ধ্বংসের সব থেকে বড় কারন। আমার কথা গুলো শুনে
আপনার মনে আঘাত লাগতে পারে। তবে বাস্তব কথা
গুলো বরাবরই তিতা লাগে। এটাই সত্য। নিজের লক্ষ্যে
আপনি এগিয়ে যান! শত মানুষের হাত বন্ধুত্ত করার জন্য
একটা সময় বাড়িয়ে দিবে। তখন নিজের পছন্দ মতো একটা
হাত বেছে নিয়েন। শুরুতে দমে গেলে লক্ষ্যে পৌছানো
তখন কল্পনাই রয়ে যায় !

গল্পের বিষয়:
ছোট গল্প

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত