টাইপিং মিস্টেক

টাইপিং মিস্টেক
মোবাইলের ডাটা অন করেই ঘুমিয়ে পড়েছি। ম্যাসেঞ্জারের টুং টাং আওয়াজ শুনে একটা চোখ মেলে তাকালাম। দেখালাম তাসফি মানে আমার বয়ফ্রেন্ড ম্যাসেজ করেছে। ঘুম ঘুম চোখেই উত্তর দিচ্ছি
–কি করো?
— chumai( ঘুমায়)
–মানে? কারে চুমাও?
–are ami ghumai
–ওহ তাই বলো। তোমাকে তো সন্ধায় বললাম জেগে থাকতে।
— amar ghum aschilo tai hagte parini
এবার সে শুধু হাসির ইমোজি পাঠাচ্ছে। কাহিনী বুঝতে ভালো করে তাকিয়ে দেখি জাগতে লিখতে গিয়ে হাগতে লিখে ফেলছি।
–আচ্ছা তুমি চুমাও এখন তোমার হাগতে হবে না। গুড নাইট এটা বলেই বেটা বিচ্ছিরি হাসির ইমোজি গুলো দিয়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছিলো নাক বরাবর ঘুসি মারি। পরে ভাবলাম আমারই তো ভুল কথা না বলে ঘুমায়।। ফ্রেন্ডের বাবা খুব অসুস্থ। কয়েকদিন ধরে হাসপাতালে আছে। খুবই আপসেট সে তাই একটু সান্ত্বনা দিচ্ছিলাম..
— আল্লাহ তুমি আংকেল কে তাড়াতাড়ি অসুস্থ করে দাও। এটা বলার সাথেই দেখি আমারে ব্লক করে দিছে। ব্যাপার টা বুঝলাম না হঠাৎ ব্লক কেন মারলো? পরে দেখি সুস্থ লিখতে গিয়ে অসুস্থ লিখে ফেলছি। নিজেরে তখন মনে মনে গালি দিলাম কয়েকটা। পরে ফ্রেন্ডকে কল দিয়ে বললাম দোস্ত সরি ভুলে লেখে ফেলছি মিস্টেক।মাফ কইরা দে তাসফির সাথে মান অভিমান চলছে কয়েদিন থেকে। সে ম্যাসেজ দিয়েও আমি খুব কাটাকাটা উত্তর দিচ্ছি
–কি করো? ভাত খাইছো?
–গু
–কি লিখো?গু দিয়ে কি করো?
–হু লিখতে গেছিলাম আমি ভুল করে ওইটা লিখে ফেলছি
–হাহা!
–(কোনো উত্তর দিলাম না)
–তুমি কি এখানো রাগ করে আছো?
–না রাগ করি নাই পাদ দাও।
–পাদ দিবো মানে আশেপাশে মানুষ আছে অনেক। ছি ছি কি বলো এসব?
–ধুর আমি বাদ দিতে বলছি
–প্লিজ একটু দেখে শুনে ম্যাসেজ দাও আমি আর হাসতে পারছি না এই ছেলেটা এতো খারাপ কেন বুঝি না। আমার ভুল হয় জেনেও সব কিছু বুঝেও না বোঝার ভান করে। বান্ধবী কে বললাম দোস্ত শপিং যাবি?
–কখন যাবি?কেন যাবি?
–ekhon parle chol. Jamai kinte jabo.
–জামাই ও কিনতে পাওয়া যায়?
— kiser jamai? Jama kinte jabo
–হাহা! আচ্ছা খেয়ে রেডি হয়ে কল দিচ্ছি। তুই খেয়েছিস?
–naa. Amader basay ay ek sathe khabo.
–কি রান্না করছে আন্টি?
–gorur mangso r bal
— ছি তোরা ওসব ও খাস?
–amra abr ki khai?
–ভালো করে দেখ কি লিখছিস ওরে ডাল রান্না করছে ডাল বান্ধবী আমার হাসতে শেষ। ভার্সিটির সিনিয়র মাহি আপু প্রোফাইল ফটো আপলোড করছে। আমি গিয়ে কমেন্ট করালাম
–খুব সুন্দর লাগছে মাগি আপু(মাহি আপু)
আমি এখানো আপুর ব্লক লিস্টে আছি। ভার্সিটি গেলেও আপুর সামনে পড়ি না। লজ্জা লজ্জা স্কুলের ফেন্ডরা মিলে ম্যাসেঞ্জারে একটা গ্রুপ খুলছে। সবার সাথে টুকটাক কথা হয়। সেদিন এক ফ্রেন্ড বললো দোস্ত তুই নাকি প্রেম করতেছিস?
— tui janoyar na?
–তুই আমাকে গালি দিলি কেনো? আমি কি করছি?
–sorry dost oita jano hobe সবাই এতো ভুল বুঝে আমারে উফ! আজকে সকালে গ্রুপে ম্যাসেজ দিয়ে বললাম
–তোদের সবাইকে অনেক কিস করতেছি।
–শয়তান পোলা গুলো বলতে লাগলো কারে কারে করিস দোস্ত?আমারে আগে কর।
আমি কিছু না বলে লিভ নিলাম গ্রুপ থেকে।এদের সামনে থাকলেই বিপদ!মান সম্মান সব যাবে। আমি আসলে মিস করতেছিলাম সবাইকে। আল্লাহ আমার সাথেই কেন বার বার এমন হয়?

গল্পের বিষয়:
ছোট গল্প

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত