পানসি

পানসি

জলপীড়িতে বসা আদরের দোয়েল
ঘাট থেকে জলে যেত সকাল-বিকেল।
পা ভিজিয়ে খেলতি তুই দোয়েল নিয়ে
আমার দোয়েল সে গেলো্ তোর হয়ে!

জোনাকির সংসার ছিল ঘর জুড়ে
আয়নায় আলো দিত রাত-দুপুরে।
বুকের জোনাকী আমার হয়ে গেল পর
তোর চুলে বাসা বাঁধে- শুণ্য এ ঘর।

দোয়েল গেল, গেল জোনাকিরা চলে
একলা পানসি আমি জেগে থাকি জলে।

জলে ডুবেছিলি মেয়ে এতকাল ধরে
অতল দরদ ছিল চোখের গভীরে।
আজ তোকে মাটি এসে নিয়ে গেলো দূরে
সবুজ ঘাসের দেশে অনেক আদরে।

পিপঁড়ের পালকিতে দরদ অতল
পায়ে পায়ে সরে আসে নিরিবিলি জল
আমার ঘরের চালে ছিল যত মেঘ
ছায়া হয়ে পাড়ি দিল জলের আবেগ।

মেঘ গেল, জল ছেড়ে গেল মেয়ে চলে
একলা পানসি আমি জেগে থাকি জলে।

রূপবতী উঠোনে রেখে গেলি নদী
সে স্রোতে পানসি আমার অদ্যাবধি
পা-ভেজা জল ছুঁয় পানসির শরীর
হুহু করে জল উঠে বুকের গভীর…

গল্পের বিষয়:
কবিতা

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত