ভালোবাসার নফল

ভালোবাসার নফল

ভালই যাচ্ছে আরজু আর তানিশার সংসার.. এইতো সেদিন ১ বছর হল… অন্যান্য দিনের মতো আজও তানিশা নাস্তা বানাচ্ছে.. আরজু রেডি হচ্ছে অফিসের জন্য.. হুট করে অফিস থেকে ফোন আসল যে হেড অফিসার আসছে…

আরজু তাড়াতাড়ি করে কোনো রকম নাস্তা খেয়ে বেরিয়ে গেল….কিন্তু ভুলে গেল একটা জরুরী জিনিস… এতো তাড়াহুড়া ছিল যে তানিশা বলতেও পরল না…

রাতে বাসায় আসল আরজু…দরজা খুলে সালাম দেয়া…রুমে এসে এসি অন করা…আরজুকে পানি দেয়া কোনোটাতেই অনিয়ম হল না তানিশার… কিন্তু সব কাজই করল মুখবুজে…কোনো কথা নেই…ব্যাপারটা বুঝতে পারলনা আরজু…

তানিশা কথা না বললে আরজুর খুব অস্বস্তিকর লাগে…অনেক ভেবেও আরজু খুজে পেলনা তানিশার অভিমানের কারণ…

আরজুকে খেতে দিয়ে তানিশা দাঁড়িয়ে আছে পিছনে..কিন্তু অন্যান্য দিন বসে থাকে আরজুর সামনে…আরজু চেয়ার নিয়ে পিছনে ঘুরলো… আরজু বসে আর তানিশা দাঁড়িয়ে সামনে…তানিশার হাতটা ধরে বসল আরজু…বলতে লাগল…

আরজু : কি হইছে তোমার…???

তানিশা : কই..?? কিছুই না… আরজু : কি মনে কর আমি বুঝি না..??? বল না কি হইছে..??

তানিশা : এতোই যদি বুঝো তাহলে তো আর আমার কিছু হয় না… আরজু : আচ্ছা মানলাম আমার ভুল হইছে..কিন্তু কি ভুল তা তো বলবা..!!! তানিশা : বিয়ের রাতে কি বলছিলাম মনে আছে..??? আরজু : হুমম…আছে… তানিশা : মনে থাকলে নিজেই বুঝো কি করছ… (প্রিয় পাঠক ও পাঠিকা প্লিজ Flash back) আরজু আর তানিশার বিয়ের রাত…সব শেষে আরজু এসে বসল তানিশার সামনে…

আরজু কিছু বুঝে ওঠার আগেই তানিশা নিজেই নিজের ঘোমটা তুলল এবং আরজুকে জিজ্ঞাসা করল…

তানিশা : আপনার কি কিছু বলার আছে..?? আরজু : না…( থমকে গিয়ে) তানিশা : আমার বলার আছে…আপনার কিছু যেহেতু বলার নেই তাই আপনি শুনবেন.. আরজু : আচ্ছা…( আবারও শক খেলে)

তানিশা : আমার কিছু কন্ডিশন আছে…জানি আপনি ৫ ওয়াক্ত নামাজই পরেন কিন্তু কাল থেকে জামাতে নামাজ পরবেন.. জামাতে নামাজ মিস করলে ভাত নাই…শুধু ফরজ না সুন্নাত আর নফল ও পড়া লাগবে…ইবাদতে যেমন ফরজ ; সুন্নাত ; নফল আছে ভালোবাসার ও তেমন ফরজ ; সুন্নাত ; নফল আছে…সব মেনে চলতে হবে…

ইবাদতে দেখা যায় ফরজ আদায় হয়ে গেলে সুন্নাত আর নফলে গাফেলতি হয়…তা করা যাবে না…ঠিক তেমনি ভালোবাসায় আমরা যখন ২ জন থেকে ৩ জন… ৩ জন থেকে ৪ জন হবো তখন যেন সুন্নাত আর নফল মিস না হয়…খবরদার….আর সুন্নাত কি কি তা তো আপনি জানেনই হাদিসে দেয়া আছে…আর নফল গুলা আসবে মন থেকে…বিশেষভাবে বর্ণিত ” অফিসে যাওয়ার সময় কপালে একটা kissi দিয়া যাইতে হবে… আরজু : এইটাও কিতাবে দেয়া আছে..???? তানিশা : না…এইটা আমার rules..আর এইটা মিস হইলে কপালে কষ্ট আছে…

Flash Back শেষ হওয়ার আগেই আরজু বসা থেকে দাঁড়িয়ে গেলো তানিশার সামনে…আর তানিশার কপালে ছুয়ে গেলো আরজুর গভীর অনুভূতির ছোয়া…তানিশা নিজের হাসিটুকু লুকিয়ে রেখে বলল…

তানিশা : অসময়ে আসছে নফল আদায় করতে… আরজু : দেখ সকালে এতো বেশি তাড়াহুড়ো ছিল যে আমি ভুলে গেছিলাম…:(:(

তানিশা : এতো তাড়াহুড়ার মধ্যে ফোন নিতে ভুলছ…??

আরজু : না..:( তানিশা : টাকাপয়সা নিতে ভুলছ..??

আরজু : না… তানিশা : তাহলে এইটা কেমনে ভুললা???

আরজু : sorry তো…. তানিশা : sorry তে হবে না… আরজু : কি লাগবে..??

তানিশা : বাইরে অনেক বড় একটা চাঁদ উঠছে…আমাকে দেখতে নিয়া চল…আর বিয়ের রাতেও মতো যদি ঘুমাই যাও… তাইলে খবর আছে.. আরজু : না না আমি আর কোনোদিন ঘুমামু না..সত্যি সত্যি…:):)

গল্পের বিষয়:
শিক্ষনীয় গল্প

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত