মা-কাঁকড়ার উপদেশ

মা-কাঁকড়ার উপদেশ

জলার ধারে এক কাঁকড়া তার পরিবার নিয়ে বসবাস করত। মা-কাঁকড়ার অনেকগুলো বাচ্চা ছিল। বাচ্চারা জলার ধারে সারাদিন খেলা করে বেড়াত। তারপর সন্ধে হলে তারা ঘরে ফিরে আসত। মা-কাঁকড়া তার বাচ্চাদের সবসময় নানারকম উপদেশ দিত। কি করে ভালো হয়ে চলতে হয়, কি করে বড়ো হতে হয়, কি করে ভালো হওয়া যায়- এইসব পইপই করে মা-কাঁকড়া তার বাচ্চাদের শেখাত। বাচ্চারাও মা-কাঁকড়ার কথামতো চলত।
একদিন মা-কাঁকড়া তার ছেলেকে বলল, ‘শোন, একটা কথা বলি- কখনও পিছনের দিকে হাঁটবি না। আর কখনও ভিজে পাথরের গায়ে গা ঘষবি না। বুঝলি?
ছেলেটি বলল, ‘বুঝেছি মা। তবে তুমি নিজে একবার সামনে হেঁটে দেখাও না মা, তাই দেখে আমি আমি সামনের দিকে হাঁটা শিখব।‘
কাঁকড়া-মা ছেলের এই বুদ্ধির প্রকাশ দেখে মনে মনে তারিফ করল। আর মনে মনে ভাবল ছেলে তো বেশ বুদ্ধিমান হয়ে উঠেছে।

নীতিঃ উপদেশের চেয়ে দৃষ্টান্ত অনেক বেশি শিক্ষাপ্রদ।

গল্পের বিষয়:
শিক্ষনীয় গল্প

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত