বাঘ ও বক

বাঘ ও বক

একদা এক বাঘের গলায় হাড় ফুটেছিল। বাঘ অনেক চেষ্টা করেও সেই হাড় বের করতে পারল না। যন্ত্রনায় অস্থির হয়ে বাঘটি চারদিকে দৌড়ে বেড়াতে লাগল। সে যে জন্তুকে সামনে দেখে তাকেই বলে– ভাই, যদি তুমি আমার গলা থেকে হাড়টা বের করে দাও, তবে আমি তোমায় পুরস্কার দেবো। আমি চিরদিনের জন্য তোমার গোলাম হয়ে থাকবো। বাঘকে যে বিশ্বাস করা যায় না, এটা কী আর কারও অজানা! সবার একই কথা– হ্যা, তোমার কথা মতো হাড় বের করে দিই আর তুমি আমাকে খাও। কত মজা তাই না? বাঘ বলল– তোমরা আমার উপকার করবে আর আমি তোমদেরই খাব! কী যে বলো তোমরা! এ কী হয়!

বাঘের মিষ্টি কথাতেও কেউ ভোলে না। কোনো জন্তুই রাজী হয় না। অবশেষে, এক বক পুরস্কারের লোভে রাজী হলো। সে বাঘের মুখের ভিতর লম্বা ঠোঁট ঢুকিয়ে দিয়ে সাবধানে হাড়টি বের করে আনল। বাঘটা হাই ছেড়ে বাচলো। দ্রুতই সে সুস্থ হয়ে উঠলো। তবে বক পুরস্কারের কথা বলামাত্র, সে দাঁত কড়মড় ও চোখ লাল করে বলল– আরে বলদ! তুই বাঘের মুখে ঠোঁট ঢুকিয়ে দিয়েছিলি। তোকে যে তখনই আমি খাইনি, সেটাই তো তোর ভাগ্য। আবার পুরস্কার চাস! যদি বাঁচার সাধ থাকে তবে আমার সামনে থেকে যা। নয়তো তোর ঘাড় এখনই মটকে দেবো, এক্ষুনি কচমচ করে চিবিয়ে খাবো তোকে। বক বাঘের কথা শুনে হতবুদ্ধি হয়ে যায়, সে তাড়াতাড়ি সেখান থেকে পালিয়ে বাচে।

উপদেশ: অসৎ লোকের সাথে ভালো ব্যবহার করলেও, অসৎ লোক ভালো হয়ে যায় না।

গল্পের বিষয়:
শিক্ষনীয় গল্প

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত