বন্ধুত্যের বৈশিষ্ট্য

বন্ধুত্যের বৈশিষ্ট্য

এরা সবসময় আড্ডায় মেতে থাকে…
–এদের কাজ হচ্ছে,আড্ডা দিতে দিতে একটা সিগারেট
দশজনে ভাগ করে খাওয়া…আবার ওই সিগারেট এর শেষ
টান দেওয়ার জন্য নিজেদের মধ্যে কাড়াকাড়ি করা…
–এদের কোন মেয়েকে পছন্দ হলে, কেউ একজন বলে ওঠে
আমার পছন্দ হইছে…আবার পাশের বন্ধুও বলে ওঠে, হবে
না,আমি আগে পছন্দ করছি…
এই নিয়ে আবার ঝামেলা করে,শেষমেশ দেখা যায়
মেয়েটা বিবাহিত না হয় কারও ভাগ্যে জুটে না…
–এদের পড়াশুনা বলতে,কলেজে একটা খাতা নিয়ে
যাওয়া আর ক্লাস রুমে মেয়েদের ডিস্টার্ব করা…
–এদের মধ্যে কেউ প্রেমে পরলে বা জন্মদিন হলে ট্রিট
দিতেই হবে…এদের ভালোবাসার কথা কেউ জানুক আর
না’ই জানুক বন্ধুরা কিন্তু জানবেই…
–কোন এক বন্ধুর বাড়িতে ভালো সার্ট-প্যান্ট নেই,কি
হইছে!!বন্ধুর তো আছে,ওইটা পড়ে’ই গ্যারান্টি না দেওয়া
ভালোবাসার মানুষটির সাথে দেখা করতে যাবে…
–বন্ধু ছ্যাকা খেলে এরা মজা নেয়…ছ্যাকা খাইছে বলে
মজা নেয় না…ভুল মানুষের প্রেমে পড়ছে বলে মজা নেয়…
–ইদানীং লক্ষ করতেছি এদের বদ অভ্যাস অন্যের ওয়াই-
ফাই হ্যাক করে ফ্রিতে নেট চালানো…
–এদের বাইক থাকে,এই বাইকে যেকেউ যেকোন সময়’ই
ঘুরতে যেতে পারে তবে তেলের খরচটা যে যাবে তার…
–এদের কখনো মন খারাপ থাকে না,কারণ বন্ধুরা মন
খারাপ হতেই দেয় না…
–এক্সাম এর সময় এরা বই পড়ে না…প্রশ্ন পাওয়ার ধান্দায়
থাকে আর নকল নেওয়ার ধান্দা…
–এদের পরীক্ষার হল থেকে বের করে দিলে খুশি মনে
বের হয়ে আসে…
আর এরা প্লাস পাক আর না’ই পাক পাশ করলেই খুশি…
–পরীক্ষার হলে, এদের কাছে কিছু জিজ্ঞেস করলে
পারে না ঠিক’ই তবে অন্যের কাছ থেকে উত্তর কালেক্ট
করে বলবে…আর নিজের খাতা তো আছে’ই,জিজ্ঞেস
করলেই খাতাসহ দিয়ে দেবে…
–কোন বন্ধুর কিছু হয়ে গেলে,এরা’ই সবার আগে বাসায়
ছুটে আসে যার ফলে নাস্তা বানাতে গিয়ে আমার আম্মু
হিমশিম খায়…
–আজকাল এরা সেলফির দুনিয়ায় বিরাজ করছে…কিছু
হলেই সেলফি…
–এরা অন্যকে বাশ দিতে ভালো’ই জানে…
–কার গাছের আম,কার গাছের কাঁঠাল, কার গাছের
পেয়ারা কয়টা আছে এরা গুনে দিতে পারে,কারণ চুরি
করতে হবে না!!!
–এরা বড্ড হারামি…চার-পাচ বার খাওয়ার পরও
বলবে,”দোস্ত,কিছু খাওয়াবি না…!!!”
–কোন বন্ধুর বাড়িতে ভালো রান্না হইছে,ওই বন্ধুর
বাড়িতে ওরা যাবেই…
–এদের মুখে সবসময় গালাগাল লেগেই থাকে,যে
গালাগাল দিয়ে একে অপরকে ডাকে…
–কার খালাতো, ফুপাত, মামাতো বোন আছে,কোন ক্লাস
এ পড়ে, বাসা কোথায়, এসব এদের থেকে ভালো আর
কেউ’ই জানে না…
–এরা ঘন ঘন কোচিং বা প্রায়ভেট চেঞ্জ করে,না এই
জন্য না যে স্যার ভালো পড়ায় না…এই জন্য চেঞ্জ
করে,কোন স্যার এর কোচিং এ ভালো সুন্দরি মেয়ে
আছে…
–এরা প্রচুর মিথ্যা কথা বলে,এদের যে কি হবে তা এরা
নিজেরাও জানে না…
–এরা প্রতিটা মুহূর্তে এঞ্জয় করে,সবসময় ফাজলামির
মধ্যে থাকে…ফাজলামি জিনিষটা কি তা এদের থেকে
ভালো আর কেউ’ই জানে না…
:
তবুও সবশেষে এরাই বন্ধু,বিপদের কাউকে কাছে পান আর
না’ই পান এদের ঠিক’ই পাবেন…
এদের ভালোবাসায় কোন ভেজাল নেই…
একেবারে খাটি ভালোবাসা…
আর হ্যা,ফ্রেন্ডশিপ ডে পালন করতে কোন ডে-ফে লাগে
না…এদের কাছে প্রতিটা দিন’ই ফ্রেন্ডশিপ ডে…

গল্পের বিষয়:
অন্যান্য

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত