তানভীরের গল্প

তানভীরের গল্প

-বরাবরের মতো সেই দিন ও ছাদে উঠেছিলাম। সন্ধ্যার পূর্বে ছাদে মানুষের অনাগুনা একটু বেশি। তাই আমি এই সময় খুব কম এই যায়। প্রথমেই উঠে হালকা গরম এক হওয়া গা ঘেষে চলে গেল। দক্ষিণ পাশ থেকে অনেক দূর অব্দি দেখা যায় ছাদ থেকে। ঐদিকে দাঁড়িয়ে ছিলাম কতক্ষন । আর ভাবতেছি এই গত কয়েক মাসে কি কি পরিবর্তন হল আর কি কি পেলাম।
হুম , নিজেকে জানার চেষ্টা । পেলাম তো অনেক কিছুই । যা কখনো আশা করিনি তাও পেলাম।
পরিবর্তন এর আশা না করাই ভালো। যেভাবে আছি ভালো আছি।

যা যা পেলাম তার মধ্যে বিশেষ করে পরীক্ষার চাপ, পুরাতন বন্ধুদের সাথে আবার দেখা সাক্ষাৎ, নতুন কয়েক জন বন্ধুদের সাথে পরিচয় আর সবচাইতে প্রিয় দুই , এক জন বোন ও ভাই এর সাথে পরিচয়।
হুম , তাদের সাতে পরিচয় হওয়াটাই আমার কাছে সবচাইতে বড় পাওয়া।
তাদের নাম উল্লেখ না করি।

আসলে আমি জীবনের একটি মুহূর্তকেও টিক মতো বুঝে উঠতে পারি না । এর প্রবাহের ধরন ও যা আশা করি তার চেয়ে ভিন্ন । ছোট থেকে অনেক কিছু ছাড়া বড় হয়েছি। অনেককে ছাড়াই বড় হয়েছি। তার মধ্যে ভাই বোন এই দুই শব্দ তো আছেই।
আমি আমার পরিবারের আদরের ।

আমি সব সময় ভাবি আমার যদি বোন থাকতো আমি তাকে আমার জীবনের সব দিয়ে ভালবাসতাম। সে হতো আমার প্রাণ । ভাই এর ক্ষেত্রে ও একই কথা।

ভাই তো আছে । আমার মামাতো ভাই মাহেল। আমার কলিজা । আমাকে ছাড়া কিছুই বুজে না সে। এখন অবশ্য তাকে খুব মিস করতেছি কারন সে গ্রামে থাকে ।

আর যাদের কথা বললাম , যাদের যাদের সাথে ইতিপূর্বে পরিচিত হলাম । তারাও নিসন্দেহে তারাও আমার কাছে খুব আপন ।
যাক অনেক খুশি আমি ।

এসব ভাবতে ভাবতে মাগরিবের আজান পড়বে , আমি নিচে নেমে যায়। আর আল্লাহ এর কাছে শুকরিয়া আদায় করি । আমাকে তিনি যেভাবে লালন পালন করেছেন। তার জন্য।

-ধন্যবাদ সবাইকে

গল্পের বিষয়:
অন্যান্য

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত