গায়ক বন্ধুর প্রেম

গায়ক বন্ধুর প্রেম

নিশাদ মাহমুদ, গানের জন্য পাগল,ইউটিউবে অনেকগুলা গান ও আছে,ভালো সাড়া পাইছে, পাবে না কেন? কন্ঠও সুন্দর,চেহারাও মাশাল্লা ভালো, এসএসসি এক্সাম শেষ,তাই বন্ধুদের সাথে যাবে কক্সবাজার,,কাহিনি শুরু বাস ইস্টিসন থেকে,,, ছেলেটা বাস ইস্টিসন গেলো বন্ধুরা এখনো আসে নাই তাই তাদের জন্য অপেক্ষা করতেছে,সে যে বেঞ্চে বসল সে বেঞ্চে এক ছেলে বসল মনে হয় ঘুরতে যাইতাছে,তো ছেলেটার হাতে গিটার ছিলো,

নিশাদ:আপনি গিটার বাজাতে পারেন?

ছেলেটা:হুম

নিশাদ:আমি নিশাদ,একটু বাজান না

ছেলেটা:আমি রফিক,ছোট ভাই আবদার করছো না বাজাই পারি,

নিশাদ:ব্যাচেলর গান টার সুরটা দেন,আমি ভালো গান গাইতে পারি

রফিক ভাই:তাই নাকি,ঠিক আছে,, গিটারে টুং টাং আওয়াজের সাথে নিশাদের সুন্দর গান গাওয়া,আস্তে আস্তে মানুষে ছোট খাট একটা ভিড় হয়ে গেলো,,গান শেষে সবাই হাত তালি দিল,দুজনের সুনামও করলো,সবাই যাওয়ার পর রফিক ভাইও চলে গেলো,, বন্ধুরা এখনো আসে নাই দেখে কল দিলো,জানতে পারলো তারা এখনো পথে আপনি খুব ভালো গান করেন

নিশাদ তাকাই দেখে খুব সুন্দর দুটো চোখ তার দিকে তাকাই আছে,এত সুন্দর চোখ সে আর দেখছে বলে মনে হয় না,

নিশাদ:ধন্যবাদ,আসলে গিটারবাদক এর অবদানে আরকি সুন্দর হইছে

মেয়েটি:নাহ!আপনার কন্ঠ সুন্দর হওয়ায় সুন্দর হইছে,,আমি তানহা

নিশাদ:আবারো ধন্যবাদ,আমি নিশাদ একটা মহিলা তাকে ডাক দিলো

মেয়েটি:বাই,,,

নিশাদ মেয়েটার চলে যাওয়া দেখতেছে,ভাবতাছে কে মেয়েটা এত সুন্দর চোখজোড়া,,,বন্ধুরা চলে আসলো,, টিকেট নিয়া বাসে উঠলো,ওরা ছিলো ৭জন আর বেজোড় টিকেটটা গেলো নিশাদের ভাগ্যে,,, আর নিশাদের ভাগ্য ভালোই কেননা তার সিটটা জানালার পাশে আর সে জানালার পাশে ছাড়া বসতে পারে না,,,ওমা একটা মেয়ে বসে আছে তার সিটে, একটু খুশি হয় যাক পুরা ভ্রমণ এক্টা মেয়ের পাশে বসে যাবে কত দিনের আশা ভ্রমনের সময় যদি পাশের সিটে একটা সুন্দরী মেয়ে পাওয়া যেত,,,

নিশাদ:সিটটা আমার, নিশাদতো অবাক ওই চোখজোড়া,ঐ মেয়েটা নাতো,

নিশাদ:আমি না জানালার সিটা ছাড়া বসতে পারি না

মেয়েটি:আপনি হওয়ায় দিছি অন্য কেউ হলে দিতাম না,,

নিশাদ:ধন্যবাদ,কিন্তু আমি হওয়ায় বুঝলাম না,

মেয়েটি:আমি তানহা,,

নিশাদ:অবাস ছেড়ে দিলো,আজকে রানুর কথা খুব মনে পড়তেছি নিশাদের আহারে মেয়েটার এত তাড়াতাড়ি বিয়ে দেয়ার কোনো মানে হয়,কত স্বপ্ন ছিলো দুজনার,,,

নিশাদ:গান শুনবেন

তানহা:আপনার হলে শুনবো

নিশাদ:আমার না, তবে আমি গাইছি,,(হেডফোনের একপাশ দিলো)

তানহা:ধন্যবাদ,

তানহা একমনে গান শুনতেছে আর ভাবতেছে আহ!ছেলেটিকে যদি আমার করতে পারতাম,গান সশুনতে শুনতে একসময় ঘুমিয়ে পড়ে,সে নিশাদের কাঁধে মাথা রেখে ঘুমাই পড়ে,, নিশাদের নাকে মিষ্টি একটা সুবাস আসে,নেশা ধরানো ঘ্রাণ, ঘুম ভাঙলে তানহা একটু লজ্জা পেয়ে যায়,,,

তানহা:আর কতক্ষন লাগবে পৌঁছাতে??

নিশাদ:মিনিটপাঁচেক,আপনি ঘুরতে যাইতাছেন??

তানহা:বড় মামা ওখানে থাকে ফ্যামিলি নিয়া,সেখানে যাওয়া ঘুরা ঘুরিও হবে ফ্রি টাইম,

নিশাদ:অ,আপনার ফেসবুক আইডি আছে??

তানহা:তানহা তাহিরা,দুটা চোখ প্রোপাইল পিক নিশাদ সার্চ দিবে কিন্তু গন্তব্যে পোঁছে যাওয়ায় আর দেয়া হয় না,,নামার সময় তানহা বলে আই লাভ ইউ, পিছনে ফিরে দেখে তানহা একটা মধ্য বয়স্ক লোকের সাথে চলে যাইতাছে,হয়তো তার মামা,,কিন্তু তানহা তাকে কি বল্ল,আর তাকে চিনে কিভাবে?

রিগ্যান:কি নিশাদ একটা মেয়ের পাশে বসলি মেয়েকে নিজের মোবাইলে গান শুনাইলি,কি ব্যাপার মামা,কে মেয়েটা

নিশাদ:জানি না ভাই

তাওফিক:তুমি জানো না মিয়া,তোমারে আই লাভ ইউ কইলো ক্যান??

নিশাদ:সেটাতো অবাক করা বিষয় মেয়েটাকে আমি প্রথম দেখলাম আর মেয়েটার সাথে প্রেম হওয়ার মত কথাও হয় নাই সারা পথ ঘুমাই গেছে,বুঝতেছি না

রায়হান:এত বুঝার দরকার নাই আসি গেছি হোটেলে,, সবাই তো খুশি,নিশাদও খুশি এত খুশির মাঝে সে দুটি চোখ আর সে কথাটি বারবার মনে পড়তেছে,, তারা হোটেলে উঠি ফ্রেশ হয়ে খানা দানা খাইতে অনেক দেরি হইগেছে শরীরও ক্লান্ত তাই ঘুমাই গেছে, পরদিন সকালে, নিশাদ বিচে গেছে সাথে তাওফিক গেছে তাওফিক তার প্রেমিকার সাথে কথা বলতেছে এমন সময়, একটা অসাধারণ মেয়ে নিশাদের দিকে দৌড়ে এসে জড়াই ধরে কান্না করতছে,তাওফিক হাঁ করে তাকাই আছে,অই দিকে তার প্রেমিকা হেলো হেলোও করতেছে,নিশাদ তো ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে গেলো কি হইতাছে

মেয়েটি:তুমি এত পচাঁ কেন?দেখো কত মেসেজ দিছি একটা রিপ্লাই দাও নাই,তুমি পিক দিছিলা হোটেলে গিয়া,সকাল সকাল তোমার সাথে দেখা করার জন্যে চলে আসছি, নিশাদ এবার চিনলো এটা তানহা,মেয়েটা এত সুন্দর কল্পনা করে নাই,কান্না করতেছে তাও সুন্দর লাগতাছে

তানহা:তুমি ভাবতাছো আমি তোমায় কিভাবে চচিনি তাইনা?তুমি ফেসবুকের একটা গ্রুপে গান দিছিলা, প্রথম যেদিন তোমার গান শুনি তখনি তোমার প্রেমে পরে যাই,,,আমি তোমায় ভালোবাসি

নিশাদ:আমিও ভালোবাসি,প্রথম দেখাতে ভালোবেসে পেলেছি একজন আরেক জনকে জড়াই ধরে রাখছে,,,চির দিন থাকুক তাদের এ বন্ধন,,

গল্পের বিষয়:
ভালবাসা

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত