তুই কি আমার হবি

তুই কি আমার হবি

কলেজ কেম্পাসের বড় বডগাছটাই হেলান দিয়ে ফেসবুক চালাচ্ছিলাম,,,এমন সময়,,,,

—- ওই, আমি এসব কি শুনছি?(ইরা)
—তুই কি শুনছিস,আমি কেমনে বলব। তুই কি আমার কান দিয়ে শুনিস না কি?? আজিব তো !!
—- ওই,তুই সবাইকে কি বলে বেরাইছিশ,হুম? তুই নাকি আমাকে ভালবাসিস!!!
—- হুম,বলছি তাতে তোর কি। তোকে তো বলিনি,,,,
—- হুম,আর আমাকে কখন বলবিও না। তোর মতো পাগল কিনা আমাকে ভালবাসে,,এই ইরাকে”!
—- আর আমারও কোন শখ নাই তোকে ভালবাসার,( যদিও পাগলিটাকে খুব ভালবাসি) এখন যা বাড়ি যা,আমাকে জালাস না।
—- চল দুজন একসাথে যাই,,,,(ইরা)
—- আমি যাব না তুই যা,,,,

ইশশশশশ,,,,ওই ছার বলছি লাকছে তো। (আসলে আমার কান টানে ধরছে”অন্য কেউ হলে এক্টা লাগাই দিতাম। কিন্তু এখন অসহাই)

—আগে বল যাবি কিনা?
— হুম।যাব,যাচ্ছি তো।।।।
—- এই তো, গুড boy। এবার চল,

পাগলি টা যে কেন এমনকরে,সব সময় আমার উপর জোর খাটাই,,,আসলে আমি ওকে অনেক ভালবাসি। কলেজের প্রথম দিনি ওর উপর ক্রাশ খাই,আর তারপরি বন্ধুত্ত! ওকে অনেক বার প্রপজ করছি কিন্তু প্রতি বারই কাগজে লিখে!!!ওর সামনে দারিয়ে প্রপজ করার মত সাহস এখনও দেখিএ উঠতে পারিনি। পাগ্লি রে, আমি যে তোকে অনেক ভালবাসি কেন বুঝিসনা? নাকি বুঝতে চাসনা।

—ওই ছাগল? এতো কি বিরবির করছিস হুম্ম?( ইরা)
— কই কিছু না তো!!!!
—- ওকে,আমার বাসা আসছে,,এখন তুই যা,,,,
—- হুম্ম।
—- ওই শোন,রাস্তাই কোন মাইয়ার দিকে তাকাবিনা হুম?
—- আমি তাকালে তোর কি? একশবার তাকাব।
— তাকালে তোর চোখ দুটা তুলে নেব। ওই তুই কি আমার বউ? যে তোর সব কথা শুনতে হবে।ভাগ,,,,,,,

— বউ নই,, বউ বানাবি!( অস্পস্ট ভাবে)
— ওই কি বললি???
—- না কিছুনা তো। এবার তুই যা,আর যেটা বললাম মনে থাকে যেন, নইলে,,তো রে আমি খাইয়া ফেলব।
— হুম।যাচ্ছি,,পাগলি কোথাকার।

কিছুই বুঝিনা পাগ্লি টারে এত প্রপজ করি,কিন্তু কখন  কোন উত্তর দিল না। কিন্তু আমাকে এতো কেয়ার করে কেন,,, তাহলে কি মৌনতা সম্মতির লক্ষন?? ওকি আমাই ভালবাসে?? নাহ, এবার একটু বাজিয়ে দেখতে হবে,,,, দেখি ওকে জেলাস করতে পারি কিনা,,,, তো আজ প্লান মতো কাজ করা শুরু করে দিলাম। আমার আরেক বান্ধবি নিলা আমার প্রতি একটু দুর্বল,ওকে ই বাক্রা বানাতে হবে,,,, হাই,নিলা কেমন আছ?

— ভাল তুমি কেমন আছ রাতুল?( নিলা)

—- আমার আবার ভাল থাকা!!! এত দিনেও একটা গার্ল ফ্রেন্ড জোটাতে পারলাম না!!

—– আমাকে তোমার গফ বানাবে??( নিলা)

— ওমা, এতো দেখি মেঘ না চাইতেই জল!!! হুট করে ইরা কোথা থেকে যেন উড়ে এসে জুড়ে বসল।

—- ওই ছাগল তুই ওকে কি বলছিস? তোর কোন গফ নাই? সবাইকে তো বলে বেরাস আমিতর গফ, এখন কি হল “হুম?
— কিন্তু ইরা,তুই ত আমাকে ভালবাসিস না। তাই,,,
— কে বলছে তরে? আমি বলছি?( ইরা)
— না কিন্তু,,,
—-আবার কিন্তু কি,,,হুম?
— আমার বিশ্বাস হচ্ছেনা যে, তুই আমআই ভালবাসিস!!!
—ও তাই একটু এদিকে আই?
— হুম,,,,
—- উম্মাহ হহহহহহহ,,,
— ওই এটা করলি?
—- তোকে বিশ্বাস করালাম।
—- এভাবে????
—- হুম,,,,,
—- তবে আর একটা দে,,,,
—- ভাগ,,শইতান,,,আর পাবিনা। আর ওই মাইয়া তুই এখানে কি করছিস? লজ্জা শরম কিছু নাই নাকি?
—-(নিলা) ওই শইতান তুই কিন্তু আমাই প্রপজ করলি না।(ইরা)

— এতবার করছি আবার করতে হবে?
— হুম।হবে,,,এখন জলদি প্রপজ কর,,,

ওর সামনে হাটু গেরে,,,, পাগলি তুই কি আমার হবি? পাগলি তোকে সাথে নিয়ে বুড়ো হতে চাই,তর হাতটি ধরে কাটাতে চাই সারা জীবন। তোকে নিয়ে হারিয়ে যেতে চাই অন্য এক জগতে,,তুইকি আমার এসব কিছুর সাথি হবি??

— হুম,,, হব,আমার পাগল।

উঠে দাড়াতেই অজানা এক স্পর্শ অনুভব করলাম।।। পাগলি টা আমাই জরিয়ে ধরে কাদছে। আমিও ওকে নিজের সাথে মিশিয়ে নিলাম,,,এই পাগলি কাদছিস কান??? হুম?

— রাতুল কখনও আমাই ছেরে যাবিনা তো? ( ইরা)
— আমার পাগলি কে ছেরে আমি কোথাও যাব না। আমার পাগলি টা অতপর শুরু হল ভালবাসার এক নতুন অধ্যায়,,,,,

গল্পের বিষয়:
ভালবাসা

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত