ঈদ আনন্দ

ঈদ আনন্দ

– বাবা, এহানে কি মেলা বইছে? এত্ত লোকের ভিড় কে? সবাই যায় আর আয়ে…
[ সালাম সাহেব তার ৭বছরের ছেলেকে নিয়ে বাজারে যাওয়ার সময় বাবার কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দেয় সিয়াম ]
সালাম- নারে বাবা, ৪দিন পর যে ঈদ। ঈদে সবাই নতুন জামা পিনবো। তার জন্য কেনাকাটা করতে আইছে সবাই। এইডারে সবাই কয় শপিং মল।

সিয়াম – ও…. আমগো ঈদ কবে আইবো?
সালাম – ঈদ তো সবাইর একদিনেই আয়ে।
সিয়াম – তাইলে আমরা এহানে কবে আমু?
[অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকে সালাম তার ছেলের দিকে ]
সিয়াম – কওনা কে বাবা?
সালাম – বাবারে, এহানে আইতে অইলে যে অনেক টাকা লাগে। আমাগো যে এত্ত টাকা নাই।
সিয়াম – তাইলে কি আমরা নতুন জামা কিনতে পারতাম না। ঈদের দিন নতুন জামা পিনতে পারতাম না?
সালাম – হ… তোরে ও নতুন জামা কিনা দিমু। অহন আয় তারাতাড়ি বাজারে যাই। তোর মা অপেক্ষা করতাছে।
সিয়াম- 😃 আইচ্ছা।

[তারপর বাজারে গিয়ে তারা কলমি শাক, পটল আর আলু কিনে বাসায় ফিরে এলো।]
সিয়াম – মা, বাবায় কইছে আমারে ঈদের জামা কিন্না দিবো।😃
লীনা বেগম – আইচ্ছা, 😀 এহন হাত মুখ ধুইয়া আয়। কয়ডা ভাত খাইয়া নে তো দেহি।
সিয়াম – তোমরা খাইতা না?
লীনা- আমরা তো রোজা রাখছি।
সিয়াম – আমিও তো রোজা।
লীনা- 😅 তোর রোজা হইয়া গেছে। এহন ভাত খা।
সিয়াম – আইচ্ছা।

[অত:পর সিয়াম কচুর ভর্তা দিয়ে ভাত খেয়ে খেলতে চলে গেলো। লীনা বেগম তাদের একমাত্র আশ্রয় স্থল বাশের বেড়ার ঘরে এসে দেখলেন সালাম সাহেব মাটির ব্যাংক টা ভেঙে টাকাগুলো একসাথে নিচ্ছেন। ]
লীনা- ছয় মাস না অইতেই ব্যাংক ভাইংগা ফেললেন?
সালাম – ৪দিন পরে তো ঈদ। পোলারে একটা ভালা জামা কিনা দেওয়া লাগতো না!🙂
লীনা- শরীর ডা ও তো আপ্নের ভালা না। কাম ও যাইতে পারলেন না।
সালাম – আল্লাহর রহমতে কাইল যামু।
লীনা- আগে ভালা হন। পরে যাইয়েন।
সালাম – আইচ্ছা, পরে দেহা যাইবো। অহন দেহো তো কয় টাকা হইছে।
লীনা- আপনেই তো দেখলেন।
সালাম – তুমি আবার দেহো।
লীনা- ১২৪০ টাকা।
সালাম – আইচ্ছা, ঈদের বাজার কি কি করন লাগবো কইয়া দিও।
লীনা- আগে আপনে ওষুধ কিনা খান। শরীর অনেক দুর্বল। পরে বাজার কইরেন।
সালাম – আরে তুমি হুদাই চিন্তা করো।আমি ভালাই আছি। দেইহো কাইল থেইকা কামে যাইতে পারমু।
যাও আন্ধাইর হইয়া যাইতাছে। রান্না শেষ করো।
লীনা- আইচ্ছা।

[পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে সালাম সাহেব গ্যারেজ থেকে রিকশা ভাড়া করে কাজে লেগে গেলেন। সামনে ঈদ, এই ২/৩ দিন ভালো আয় করতে পারবেন বলে আশাবাদী তিনি। সারাদিন কাজ করে মোটামুটি ভালো আয় করতে পেরেছেন। ভাড়া মিটিয়ে আজ ৩০০টাকা পেয়েছেন। বিকেলে ছেলে সিয়ামকে নিয়ে নিউমার্কেটের সামনে ফুটপাতের দোকানে গেলেন। তারপর ছেলে সিয়ামকে ১টা পাঞ্জাবি, ১টা শার্ট আর ২টা প্যান্ট কিনে দিলেন ৬৭০টাকায় । আর স্ত্রী লীনার জন্য ১টা ৩৫০টাকা দামের শাড়ি কিনলেন। আর কিছু টাকা দিয়ে ঈদের বাজার করলেন। ]
সিয়াম – বাবা তোমার লাইগা কিছু নিবা না?
সালাম- বাবা, আমিতো কয়দিন আগে শার্ট কিনছি। অইটাই তো নতুন রইছে। চল বাড়ি যাই।
সিয়াম – আইচ্ছা।
[ফুটপাতের দোকান ছেড়ে আসতেই সিয়াম দেখলো তার সমবয়সী ১টা ছেলে খালি গায়ে রাস্তায় শুয়ে আছে। ছেলেটা প্রায়ই সিয়ামের বাড়ির দিকে যায় খেলতে।]
– কিরে সিয়াম, কই গেছিলি?
সিয়াম – ঈদের জামা কিনতে। তুই কিনছ নাই?
– নারে, কেডা কিন্না দিবো? আব্বায় তো বাড়িততে ই বার কইরা দিছে।
সিয়াম- বাবা, আমার তো ২টা জামা কিনছি। একটা দিয়া দেই?
[ ছেলের কথা শুনে সালাম সাহেব অবাক! ]
সালাম- বাবা তুই যদি দিয়া খুশি থাকস তাইলে দিয়া দে। আমি না করমু না।🙂
সিয়াম – আইচ্ছা 😀
[তারপর সিয়াম তার পাঞ্জাবিটা ছেলেটিকে দিয়ে দিলো। ]
সিয়াম- ঈদের সময় নামাজ পইড়া আমাগো বাড়িতে আইছ। একলগে খামু আর ঘুরমু।
– আইচ্ছা 😃। তুই অনেক ভালা রে সিয়াম।
[তারপর তারা বাসায় ফিরলো। সালাম সাহেব তার স্ত্রীর হাতে শাড়িটা দিলেন। ]
সালাম- বউ, তোমার লাইগা এইডা আনছি। দেখোতো কেমন অইছে?
লীনা- শাড়ি আনতে গেছেন কে আবার! আমার তো শাড়ি আছেই।
সালাম- আমি কি জানিনা নাকি কিছু! এক শাড়িতে কত্ত তালি লাগাইয়া পিনবা আর!
লীনা- নিজের লাইগা কিছু আনেন নাই?
সালাম – আমি না কয়দিন আগে শার্ট কিনছি। অইডাই অইবো। পড়ে আবার কিনা নিমু।
লীনা- বোকা পাইছেন আমারে! এক বছর অইয়া যাইবো এহন কন কয়দিন আগে! আমি জানি নিজের লাইগা কিছু আনবেন না। আমি আইজ দোকানে গিয়া সিয়ামের আর আপনের লাইগা পাঞ্জাবী কিনছি। দাড়ান আইতাছি।
এই নেন, দেহেন তো লাগে কিনা!

সালাম- 😮তুমি টাকা পাইলা কই!
লীনা- হাতের কাজ কইরা কয়ডা টাকা জমাইছি। অইডা দিয়ে কিনছি।🙂
সালাম – তুমি তো নিজের লাইগা কিছু কিনো নাই!
লীনা- আমি জানতাম আপনে আমার লাইগা কিনা আনবেন। 🙂
সিয়াম- বাবা, আমার তো এক পাঞ্জাবী গিয়া আরেকটা আইয়া পরছে😃
লীনা- কই গেছে আরেকটা?
সিয়াম – আমার বন্ধুরে দিয়া দিছি। অরে তো কেউ কিনা দেয় নাই।
লীনা- 🙂
সালাম – বউ, দেইকখো আমাগো পোলা অনেক বড় মানুষ হইবো।🙂
সিয়াম – হ, বাবা আমি বড় হইয়া তোমাগো অই যে শপিং মল দেহাইছো না। অই খানে লইয়া যামু। আবার অনেক গুলা জামা কিনা দিমু 😊
লীনা- হ বাবা, তুই অনেক বড় হবি 🤩।

[সালাম আর লীনা বেগম এর একমাত্র সন্তান সিয়াম। তারা ইচ্ছে করে আর কোনো সন্তান আনেনি তাদের পরিবারে। কেননা তারা চায় না, তাদের সন্তান এই দরিদ্র পরিবারে কষ্টে জীবন যাপন করুক। পৃথিবীর প্রতিটি পিতামাতাই চায় তাদের সন্তান সাচ্ছন্দ্য, সুন্দর জীবন যাপন করুক।]

অত:পর সালাম সাহেব, লীনা বেগম ও সিয়াম আনন্দের সাথে ঈদ উদযাপন করলো। সাথে সিয়ামের বন্ধু ও ছিলো আনন্দ ভাগ করতে। তাদের মতো পূর্ণ হোক সকলের #ঈদ_আনন্দ। আল্লাহ হাফেজ 🙂।

গল্পের বিষয়:
ভালবাসা

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত