কল্পনার অষ্পষ্ট ভালবাসা

কল্পনার অষ্পষ্ট ভালবাসা

এবার খুশি? আজতো মিস হই নাই । আমিতো বলছিলাম নিয়ে আসব। এত কিছু না করলে হত না? এখন মন ভরে মুভি দেখ ।

তিথি: আমি কি করব? কতদিন বলছি, আমার কথা শুনছ ? এতকিছু না করলে তুমি তো আসতা না ।আর আজ মিস করাটা সম্ভব ছিল না ।

এই হল তিথি, যার সাথে আমি কখনো রাগ করতে পারি না । এত সুন্দরভাবে কথা বলে, রাগ করব কি, আমার সব ক্লান্তি দুর হয়ে যাই । বাসাই যখন আসি ক্লান্ত হয়ে তখন তিথির মুখটা দেখলে সবই ভুলে যাই । আজ সকালে ঘুম থেকে উঠার পর মাথাটা ধরে ছিল, একটু পর চা নিয়ে আসল তিথি । তাকে যত দেখি, ততই মুগ্ধ হয় । এত ভাল লাগে ঘুম থেকে উঠার পর, অফিস যেতে ইচ্ছে হয় না । সবচেয়ে ভাল লাগে তিথি যখন গোসল করে এসে আমার পাশে বসে মাথাই হাত বুলিয়ে দেই । চুলগুলো আমার মুখের উপর পরে, তখন ঘুম থেকে উঠতে ইচ্ছে হয় না । মাথা ব্যাথা কোথাই যে যাই মনেই থাকে না । মনে হয়, সব সময় যদি এভাবে পাশে বসে থাকত, এরচেয়ে বেশি কি চাইতে পারি ।

অনেকদিন থেকে বলছে, শপিং করবে, ব্যাস্ততার কারণে নিয়ে আসতে পারি না। আর ও কখনো একা বের হয় না । কিন্তু আজ বের হয়ে গেল। পান্থপথ এসে আমাকে ফোন করল, “জরোরি কাজে বের হতে হল, তারাতারি এস ” । আমি তো অবাক, কি হল আজ, কিছু না বলে বের হয়ে গেল। আমি কিছু বলার আগেই ফোন রেখে দিল । আমার চিন্তা হতে লাগল। আবার ফোন দিলাম, ফোন বন্ধ। মাথা খারাপ হয়ে গেল । এত চিন্তা হচ্ছিল, বুঝাতে পারব না। তারাতারি বের হলাম, মাথা ঠিক নাই, বার বার ফোন করতেছি, কিন্তু মোবাইল বন্ধ। সি.এন.জি নিয়ে অনেক তারাতারি গেলাম, কপাল ভালো আজ খুব একটা জ্যাম এ পড়তে হই নাই। অনান্য দিনের মত জ্যামে পড়লে আমি সত্যি সত্যি হার্টফেইল করতাম।
হঠাত একটা মেসেজ আসল, বসুন্ধরার সামরে দাড়িয়ে আছি, আসো।‍‌ শান্তি পেলাম যে সুস্থ আছে। তারপরও মেঝাজটা খারাপ হয়ে গেল, মোবাইল অফ রাখল কেন? আজ শক্ত করে কিছু বলব,,,এর কোন মানে হয় ?

মেজাজ খারাপ করে গেলাম, গিয়ে দেখি, বসুন্ধরার সামনে দাড়িয়ে। নীল একটা শাড়ি পড়ে ছিল । আমি sure পড়িও এত সুন্দর হয় না, আজ যেমন ভালো লাগছিল । ওকে দেখে আর কিছু বলতে পারলাম না।

কি হয়েছিল, এত জরুরি ? আর ফোন অফ কেন ?
তিথি: আরে এত কথা বলোনা, মুভি শুরো হয়ে গেছে। তারাতারি আসে।

এই সব এর মানে কি?

তিথি: বল্লাম না, কিছু না। তারাতারি আসো ।

আমি বুঝলাম না, মুভি দেখবা ভালো কথা, ত ফোন অফ কেন ?আর আমাকে আগে বল্লে কি হত ?
তিথি : আরে ভাল লাগে নাই, তাই বলি নাই। এবার চুপ করে দেখবা, নাকি চলো যাব ?

ওকে, দেখ ।

একটু পর মাথাটা ঠান্ডা হল। তিথি আমার হাতটা ধরে বসে আছে। সে দেখে মুভি, আমি দেখি ওকে। কি কোমল একটা মেয়ে, নিষ্পাপ । ওকে দেখলে যে কারোই মন ভালো হয়ে যাবার কথা। একেই বলে শান্তি । জীবনে মনে হয় অনেক বড় কোন ভাল কাজ করেছিলাম, এর ফলসরূপ আল্লাহপাক তিথিকে আমার কাছে দিল। এমন ভালবাসা যেন শেষ না হয়।

মুভি শেষ করে অনেক শপিং করল । আজ একটু বেশিই কিনল।এত কিছু কখনো কিনতে দেখি নাই। আমার জন্য একটা পান্জাবিও কিনল তিথির শাড়ির রং এর সাথে মিল রেখে।

রাত ৯ টা কি ৯.৩০ :
ডিনার শেষ করলাম। বিল দেয়ার সময় দেখি পকেটে টাকা নাই। সপিং করে শেষ হয়ে গেছে। ওয়েটারের দিকে আমার চাহনি দেখেই তিথি বুঝতে পারল। কিছু বলতে পারলাম না, এখনো তিথিকে আমার girl friend ই মনে হয়। একটু লজ্জা লাগল। আমার চাওয়া দেখে ওর ঠোটের কোনাই ছুট্ট একটা হাসি উদয় হল। এই হাসিটা এত মনোরম ছিল, আমার মনে হয় না, জগতে এর চেয়ে সুন্দর কিছু খুজে পাওয়া যাবে ? আজ তিথিই বিল দিল।

বাসায় আসার পর ফ্রেশ হয়ে তারাতারি শুয়ে পড়লাম। ক্লান্ত ছিলাম তাই ঘুমাতে মনে হয়ে দেরি হয় নাই। একটু পর হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে গেল। তিথি মুখের উপর পানি ঢেলে দিল। পুরা ভিজে গেলাম। এমনি ক্লান্ত আবার এই অবস্থা। মেজাজ কিভাবে ঠিক থাকে।

এটা কি করলা ?
পানি দিলাম , দেখ না ।
মানে কি এসবের ?
তুমি ঘুমাবা আর আমি বসে থাকব ?
কাজ থাকলে বলবা না ? এসব করার মানে আছে ?
বলব কেন ? এসে ঘুমিয়ে পড়ছ । আমাকে wish করছ ?
কিসের wish ?
কিসের wish মানে? তুমি আজকের দিনটা ভুলে গেলা ? আমাকে ভুলে গেলেও কষ্ট পেতাম না, তুমি আজকের দিনটা কি করে ভুল ?

এখন আবার মুখের উপর পানি ঢেলে দিল। এবার লাফ দিয়ে বিছানা থেকে উঠে গেলাম। উঠার পর সব কিছু যাপসা দেখছি । আশেপাশে তো কেউ নাই। তার মানে……

আফসোস, এত সুন্দর একখান বউ পাইছিলাম, মিস হয়ে গেল। কপালটা ই খারাপ। আবার ঘুমালে কি দেখা যাবে ? তারাতারি ঘুমিয়ে যাই ……

আচ্ছা , আবার ঘুমাবার পর যদি দেখি, তখন যদি বলে আজকের বিশেষ দিনের কথা । কি দিন ছিল আজ ?

গল্পের বিষয়:
ভালবাসা

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত