নতুন সকাল

নতুন সকাল

কেমন আছ প্রিয়তি? ভালোই। আমাকে কি ভুলে যেতে পেরেছো? কই নাতো আমি তো তোমাকে ভুলিনি। আজও প্রতি রাতে আমার বালিশ ভেজে তোমাকে মনে করে। বাড়িতে যখন তোমার প্রিয় পায়েস রান্না করি সবার আগে মনে হয় তোমার জন্য নিয়ে যাই। আমার আলমারিতে এখন কোনো নীল রংয়ের ড্রেস নেই। চোখে কাজল ও দেই না জানো। আগের মতো প্রতি শুক্র বারে সাজি না। সেভাবে হাসতেও পারি না।

আমাকে ভোলার চেষ্টা করো প্রিয়তি। আমি তোমার অতীত। সাজিদ তোমার বর্তমান সাথে ভবিষ্যৎ ও।  কি করে ভুলবো বলতে পারো। সাজিদের জায়গায় তো আজ তোমার থাকার কথা ছিল। তোমাকে নিয়েই তো হাজার সপ্ন বুনেছি। কি করে আবার সপ্ন দেখবো আমি। কেনো চলে গেলে তুমি কেনো?

কান্না থামাও প্রিয়তি সবার হাতে সব কিছু থাকে না। আমার হাতেও ছিল না। আল্লাহ কার জন্য কি রেখেছেন তা আমরা কেউ জানিনা। তবে এটুকু জেনে রাখো আল্লাহ যাই করেন আমাদের মঙ্গলের জন্যই করেন। আমাকে তুমি হারিয়েছো ভাগ্যের দোষে। আর সাজিদকে হারাবে নিজের দোষে। আমি তো কোনোদিন তোমার ছিলাম না। তাহলে আমার স্মৃতি আকড়ে বাঁচার কোনো মানে আছে। সাজিদ তোমাকে ভিষন ভালোবাসে। তোমার মা বাবা আমার থেকেও হাজার গুন ভালো ছেলের সাথে বিয়ে দিয়েছে তোমায়। কিন্তু জেনে রাখো তোমার অবহেলায় একদিন সাজিদও হারিয়ে যাবে। ও তোমার এই অবহেলা আর নিতে পারছে না আমি দেখেছি। ওকে হারালে অন্য কেউ তোমার লাইফ এভাবে সাজাতে আসবে না। তাই সময় থাকতে আকড়ে ধর সাজিদ কে।
কিন্তু কি করে তোমাকে ভুলবো বলতে পারো?

আমাকে ভুলতে বলছিনা তোমাকে। কেউই নিজের প্রথম ভালোবাসা ভুলতে পারেনা। কিন্তু তাই বলে এই নয় তুমি প্রতিনিয়ত নিজের এবং সাজিদের লাইফ নষ্ট করবে। সাজিদ আমার থেকে বেশি ভালোবাসা ডিজার্ভ করে। এমন কি এটা ওর অধিকার। ভেবে দেখো তো কি করেছি আমি তোমার জন্য। শুধু একটু ভালোবাসাই দিয়েছি। আর কেয়ারিং টা বরাবর তোমার ছিল আমার প্রতি। সব সময় তুমি আমার আবদার মিটিয়েছো। তোমার কয়টা আবদার পুরণ করেছি আমি। সব সময় অবহেলা করেছি তোমাকে। কিন্তু সাজিদ কে দেখো ভালোবাসার সাথে সাথে তোমার কত কেয়ার করে। তুমি যেমন চাও সেভাবে তোমার সামনে আসে। তোমার প্রতিটা ইচ্ছা অনিচ্ছা দিকে খেয়াল রাখে। তুমি আমার জন্য নিজের সব পছন্দের কুরবানি দিতে ও তোমার জন্য তাই করছে। তুমি নিজেকে আমার জন্য বদলেছো আর সাজিদ নিজেকে তোমার জন্য বদলেছে। তুমি ওকে কম কথা শোনাও নি কম খারাপ ব্যবহার করোনি তবুও ও তোমাকে ছেড়ে যায়নি। ভেবে দেখোতো ওর জায়গায় আমি থাকলে কি করতাম? তুমিই বলো কি করতাম?
তুমি কবে ছেড়ে দিতে আমাকে।

ঠিক কিন্তু ও তা করেনি। আমি তোমাকে ভালোবাসতাম কিন্তু নিজের থেকে বেশি না। আর সাজিদ তোমাকে শুধু আমার থেকে তোমার থেকে না ওর নিজের থেকেও বেশি ভালোবাসে। তাহলে তুমিই বল সাজিদের সাথে কি এমন করা তোমার ঠিক হচ্ছে। আমার সাথে আমার অস্তিত্ব ও বিলীন হয়ে গেছে। চাইলে ও আর পাবেনা আমাকে। তোমার মন থেকে আজ চিরতরে বেরিয়ে এসেছি। তোমাকে ভুল করা থেকে আটকাতে। আজকের পর তোমার মনের একচ্ছত্র অধিপতি হবে সাজিদ। জানি একদিনে সম্ভব না। কিন্তু চেষ্টা করো দেখবে সবই সহজ হয়ে গেছে।
শেষ বারের মতো কি তোমার স্মৃতি গুলো মনে করতে পারিনা? অবশ্যই পারো।

মনে আছে আমাদের প্রথম দেখা হওয়ার কথা? হুম খুব আছে। দিনটা ছিল পহেলা বৈশাখ। বান্ধবীদের সাথে শাড়ি পড়ে বেরিয়েছিলে তুমি। আর আমিও বন্ধুদের সাথে পান্জাবী পড়ে বেরিয়ে ছিলাম। কোয়েন্সিডেন্টলি তোমার শাড়ির সাথে আমার পন্জাবীর রং এবং ডিজাইন মিলে গিয়েছিল। সেদিন দুজনেই বিব্রত ছিলাম আমরা। সেই বিব্রতকর পরিস্থিতির মাঝেও তোমাকে ভিষন ভালোলেগেছিলো আমার। সেদিন অবশ্য কাছে গিয়ে কথা বলার সাহস হয়নি আমার।

হুম আমারও তোমাকে ভালো লেগেছিলো সেদিন। তারপর যখন বাসা‌ নিয়ে তোমাদের পাড়ায় এলাম ছাদে দাড়িয়ে প্রায় রোজই দেখতাম তোমায়। তারপর এক সিন্গ্ধ বিকালে শরৎের কাশফুল হাতে তোমার আমার প্রেমের শুরু। তারপর তিন বছর কত মান অভিমান ভালোবাসা কত শত স্মৃতি।

তারপর সেই ভালোবাসা প্রেমের সমাপ্তি ঘটিয়ে তুমি চলে গেলে না ফেরার দেশে। আমার সমস্ত অভিমান অভিযোগ ভালোবাসা সব সাথে নিয়ে গেলে তুমি। নিজেকেই প্রশ্ন করো এই তিনবছরের সম্পর্ক‌ে কার এফোর্ট বেশি ছিলো সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার জন্য? আমার। আমাদের সম্পর্কট টিকিয়ে রাখতে যেটুকু এফোর্ট তুমি দিয়েছো তার ১% ও যদি তোমার আর সাজিদের সম্পর্কে দাও তাহলে তোমাদের সম্পর্ক আমাদের থেকেও সুন্দর হবে। কি দেবেনা? চেষ্টা করবো। হুম শুধু চেষ্টা‌ দিয়েই শুরু করো তাতেই চলবে। তুমি কি আর আসবে না আরমান?

বোকা মেয়ে আমি তো সত্যি নই তোমার মনেই আমার সৃষ্টি তুমি চাইলেই আসবো। কিন্তু আমি জানি সাজিদকে যেদিন থেকে ভালোবাসতে শুরু করবে সেদিন থেকে আমার অস্তিত্ব পুরোপুরি শেষ হয়ে যাবে তোমার মন থেকে।
তাহলে কেন আমাকে তোমাকে ভুলতে বলছ আরমান?

আমাকে মনে রাখলে জীবন্ত লাশ হয়ে কাটাবে তুমি যা আমি চাইনা। যাই হোক সাজিদের আসার সময় হয়েছে আমি যাই কেমন আর এ কদিনে বেশি মনে করো না আমায়। আমি চাই কাল থেকে একটা নতুন সকালে শুরু হোক তোমার জীবনের। বসে বসে সাজিদের অপেক্ষায় আছে প্রিয়তি। একটু পরই ওর খোজে ছাদে আসবে সাজিদ। কাল থেকে সত্যিই এক নতুন সকালের শুরু করবে প্রিয়তি।

গল্পের বিষয়:
অনুপ্রেরণা

Share This Post

সর্বাধিক পঠিত